তিনটি বিশেষ ধরনের দ্বন্দ্ব সমাস

এ আলোচনায় আমরা তিনটি বিশেষ প্রকৃতির দ্বন্দ্ব সমাস সম্পর্কে জানবো।

১. বহুপদী দ্বন্দ্ব:
সংজ্ঞা: তিন বা তারও অধিক পদ মিলে যদি কোনো দ্বন্দ্ব সমাস গঠিত হয়, তাকে বহুপদী দ্বন্দ্ব বলে।
সংজ্ঞা বিশ্লেষণ: এ সমাসের নাম থেকেই বোঝা যাচ্ছে যে, বহু পদ মিলে তৈরি হয় বলেই এর নাম ‘বহুপদী দ্বন্দ্ব’। আমরা জানি- সমাসে সাধারণত দুটি পদ থাকে। তবে, যদি কোনো দ্বন্দ্ব সমাসে দুটির বেশি পদ থাকে, তাহলে সেটা বহুপদী দ্বন্দ্ব সমাস হবে।

উদাহরণ ব্যাখ্যা:
নাক-কান-গলা। যদি বলা হয় ‘তিনি একজন নাক-কান-গলা বিশেষজ্ঞ’; এর মানে কী? তিনি কেবল নাকের বিশেষজ্ঞ, না-কি কেবল কানের বিশেষজ্ঞ, না-কি কেবল গলার বিশেষজ্ঞ? উত্তরটি হচ্ছে: তিনি নাক, কান ও গলা- এ তিনটি বিষয়েই বিশেষজ্ঞ। অর্থাৎ এখানে সবগুলো পদের অর্থই প্রাধান্য পাচ্ছে। সুতরাং এটি নিঃসন্দেহে একটি দ্বন্দ্ব সমাস এই দ্বন্দ্ব সমাসটিতে আমরা কয়টি পদ দেখতে পাচ্ছি? তিনটি (নাক, কান, গলা)। যেহেতু এই দ্বন্দ্ব সমাসটিতে দুইয়ের অধিক পদ রয়েছে, সুতরাং এটি বহুপদী দ্বন্দ্ব সমাস।

ব্যাসবাক্য গঠন: প্রতিটি পদের পরে কমা এবং শেষ পদটির আগে ও/এবং/আর বসিয়ে দিলেই এর ব্যাসবাক্য হয়ে যায়। যেমন: নাক-কান-গলা = নাক, কান ও গলা।

আরও উদাহরণ: সাহেব-বিবি-গোলাম, তেল-নুন-লাকড়ি।

২. অলুক দ্বন্দ্ব:
সংজ্ঞা: যে দ্বন্দ্ব সমাসে কোনও সমস্যমান পদের বিভক্তি লোপ পায় না, তাকে অলুক দ্বন্দ্ব বলে।
সংজ্ঞা বিশ্লেষণ: কোনও সমস্যমান পদের বিভক্তি লোপ পায় না- এর মানে হলো, পদের সাথে বিভক্তি যুক্ত থাকে। অর্থাৎ প্রত্যেকটি পদের সাথে বিভক্তি যুক্ত থাকলেই সেটা অলুক দ্বন্দ্ব সমাস হবে।

উদাহরণ ব্যাখ্যা:
দেশে-বিদেশে। এখানে দুটি পদ রয়েছে এবং এদের প্রত্যেকটির সাথেই বিভক্তি যুক্ত আছে (দেশে = দেশ + এ, বিদেশে = বিদেশ + এ)। সুতরাং এটি একটি অলুক দ্বন্দ্ব সমাস।

আরও উদাহরণ: দুধে-ভাতে, জলে-স্থলে, হাতে-কলমে, ঘরে-বাইরে, মায়ে-ঝিয়ে।

৩. একশেষ দ্বন্দ্ব:
সংজ্ঞা: যে দ্বন্দ্ব সমাসে সমস্তপদ একটি একক শব্দ হিসেবে দেখা দেয়; যে সমস্তপদে ব্যাসবাক্যের একাধিক শব্দ একটি পদের মধ্যে লুপ্ত থাকে, তাকে একশেষ দ্বন্দ্ব সমাস বলে।

সংজ্ঞা বিশ্লেষণ: একশেষ দ্বন্দ্ব সমাসের সমস্তপদ একটি পদ দ্বারাই গঠিত হয়; কিন্তু সেই পদটি অন্য একাধিক পদকে নির্দেশ করে।

উদাহরণ ব্যাখ্যা:
আমরা। ‘আমরা’ একটিমাত্র পদ; কিন্তু এ পদটি অন্য আরও তিনটি পদকে (সে, তুমি, আমি) নির্দেশ করছে। এর ব্যাসবাক্য হবে- সে, তুমি ও আমি।

সহজ কথায়: একটি বহুবচন-বাচক পদ দ্বারা গঠিত সমাসই একশেষ দ্বন্দ্ব সমাস। এখানে ‘আমরা’ একটি বহুবচন-বাচক পদ।

আরও উদাহরণ: তোমরা = সে ও তুমি।

Spread the love