কোথায় ‘ব্য’, কোথায় ‘ব্যা’?

শব্দের শুরুতে ‘ব্য’ ও ‘ব্যা’-এর ব্যবহার নিয়ে দ্বিধায় পড়েন না- এমন মানুষ খুব কমই আছেন। আজ আমরা কথা বলবো এ দুটি শব্দাংশের ব্যবহার নিয়ে।

যে-সব ক্ষেত্রে ‘ব্য’ হবে:
নিয়মটি হচ্ছে: বি + অ = ব্য।
ব্যাখ্যা: ‘বি’ উপসর্গের সঙ্গে ‘অ’ বর্ণ দিয়ে শুরু হওয়া কোনো শব্দ যুক্ত হলে সেখানে ‘ব্য’ হবে।

উদাহরণ ব্যাখ্যা:
বি + অগ্র = ব্যগ্র। এখানে ‘বি’ উপসর্গের পরে যুক্ত হওয়া ‘অগ্র’ শব্দটির শুরুতে ‘অ’ রয়েছে। তাই এখানে ‘বি + অ = ব্য’ হয়েছে।

আরও উদাহরণ:
ব্যক্তি = বি + √অনজ্ + তি। ‘ব্যক্তি’ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্য’ হবে।
ব্যঙ্গ = বি + অঙ্গ। ‘ব্যঙ্গ’ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্য’ হবে। ব্যতিক্রম: ব্যাঙ্গমা।
ব্যঞ্জন = বি + √অনজ্ + অন। ‘ব্যঞ্জন’ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্য’ হবে।
ব্যতিক্রম = বি + অতি + √ক্রম্ + অ। ‘ব্যতি’ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্য’ হবে।
ব্যবচ্ছেদ = বি + অব + √ছিদ্ + অ।
ব্যবধান = বি + অব + √ধা + অন।
ব্যবসায় = বি + অব + √সো + অ। এ-রকম: ব্যবসায়ী, ব্যবসিক। কিন্তু ব্যাবসা, ব্যাবসায়িক, ব্যাবসাবাণিজ্য, ব্যাবসাদার, ব্যাবসাপাতি।
ব্যবস্থা = বি + অব + √স্থা + অ। ‘ব্যবস্থা’ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্য’ হবে।
ব্যবহার = বি + অব + √হৃ + অ। ‘ব্যবহার’ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্য’ হবে। কিন্তু ‘ব্যাবহারিক’ বানানে ‘ব্যা’ হবে।
ব্যভিচার = বি + অভি + √চর্ + ইন।
ব্যর্থ = বি + অর্থ। ‘ব্যর্থ’ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্য’ হবে।
ব্যস্ত = বি + √অস্ + ত। ‘ব্যস্ত’ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্য’ হবে।

ব্যতিক্রম: এ নিয়মের মধ্যে পড়েনি- এমন কিছু শব্দেও ‘ব্য’ হয়। যেমন: ব্যথা, ব্যয় এবং
এ দুটো শব্দ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্য’ হবে।

যে-সব ক্ষেত্রে ‘ব্যা’ হবে:
নিয়মটি হচ্ছে: বি + আ = ব্যা।
ব্যাখ্যা: ‘বি’ উপসর্গের সঙ্গে ‘আ’ বা ‘আ’ বর্ণ দিয়ে শুরু হওয়া কোনো শব্দ যুক্ত হলে
সেখানে ‘ব্যা’ হবে।

উদাহরণ ব্যাখ্যা:
বি + আ + √কৃ + অন = ব্যাকরণ। এখানে ‘বি’ উপসর্গের পরে ‘আ’ যুক্ত হয়েছে। তাই এখানে ‘বি + আ = ব্যা’ হয়েছে।

আরও উদাহরণ:
ব্যাকুল = বি + আ + √কুল্ + অ । ‘ব্যাকুল’ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্যা’ হবে।
ব্যাখ্যা = বি + আ + √খ্যা + অ + আ। ‘ব্যাখ্যা’ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্যা’ হবে।
ব্যাঘ্র = বি + আ + √ঘ্রা + অ।
ব্যাধি = বি + আ + √ধা + ই। ‘ব্যাধি’ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্যা’ হবে।
ব্যাপক = বি + √আপ্ + অক।
ব্যাপন = বি + √আপ্ + অন। ‘ব্যাপা’ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্যা’ হবে।
ব্যাপ্ত = বি + √আপ্ + ত। ‘ব্যাপ্ত’ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্যা’ হবে।
ব্যায়াম = বি + আ + √যম্ + ত।
ব্যাহত = বি + আহত। ‘ব্যাহ’ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্যা’ হবে।

ব্যতিক্রম: এ নিয়মের মধ্যে পড়েনি- এমন কিছু শব্দেও ‘ব্যা’ হয়। যেমন: ব্যাং, ব্যাস এবং এ দুটি শব্দ দিয়ে শুরু হওয়া সকল শব্দে ‘ব্যা’ হবে।

গুরুত্বপূর্ণ: বিদেশি যে-সব শব্দের শুরুতে ‘অ্যা’ উচ্চারিত হয়, যে-সব ক্ষেত্রে অপরিহার্যরূপে ‘ব্যা’ হবে। যেমন: ব্যাগ, ব্যাজ, ব্যাট, ব্যাটারি, ব্যাডমিন্টন, ব্যানার, ব্যান্ড, ব্যান্ডেজ, ব্যারাক, ব্যারাজ, ব্যারাম, ব্যারিস্টার, ব্যালট।

দ্রষ্টব্য:
১. ‘ব্য’ দিয়ে শুরু হওয়া শব্দগুলোর উচ্চারণ শিখতে ঘুরে আসুন এখানে
২. ‘ব্যা’ দিয়ে শুরু হওয়া শব্দগুলোর উচ্চারণ শিখতে ঘুরে আসুন এখানে।

Spread the love