এই পৃথিবীতে এক স্থান আছে-শব্দ ধরে পড়ি:

১। ‘এই পৃথিবীতে এক স্থান আছে’ বলতে কবি কোন স্থানকে বুঝিয়েছেন?
উত্তর: নিজের দেশকে
২। কবি নিজের দেশকে কী বলে আখ্যায়িত করেছেন?
উত্তর: সবচেয়ে সুন্দর করুণ
৩। ‘সেখানে ……….. ডাঙা ভরে আছে।’ শূন্যস্থানে কী হবে?
উত্তর: সবুজ
৪। সেখানে সবুজ ডাঙা কীসে ভরে আছে?
উত্তর: মধুকূপী ঘাসে
৫। ‘সেখানে সবুজ ডাঙা ভ’রে আছে মধুকূপী ঘাসে অবিরল।’ ‘সেখানে’ বলতে কোন স্থানকে বোঝানো হয়েছে?
উত্তর: কবির নিজের দেশকে
৬। এ কবিতায় কোন কোন গাছের নাম উল্লেখ আছে?
উত্তর: কাঁঠাল, অশ্বত্থ, বট, জারুল, হিজল
৭। কোন সময়ের মেঘের কথা এ কবিতায় উল্লেখ আছে?
উত্তর: ভোরের মেঘ
৮। ভোরের মেঘে কী জাগে?
উত্তর: অরুণ
৯। এ কবিতায় অরুণ কীসের মতো?
উত্তর: নাটার রঙের মতো
[নোট: নাটা: লতাকরঞ্চ, গোলাকার ক্ষুদ্র ফল বা তার বীজ।]
১০। বারুণী কে?
উত্তর: বরুণের স্ত্রী, জলের দেবী
১১। বারুণী কোথায় থাকেন?
উত্তর: গঙ্গাসাগরের বুকে
১২। বরুণ কে?
উত্তর: হিন্দু ধর্মের একজন দেবতা
১৩। বরুণ কী দেন?
উত্তর: জল
১৪। বরুণ কাকে জল দেন?
উত্তর: কর্ণফুলী, ধলেশ্বরী, পদ্মা ও জলাঙ্গীকে
১৫। ‘কর্ণফুলী ধলেশ্বরী পদ্মা জলাঙ্গীরে দেয় ………. জল।’ শূন্যস্থানে কী হবে?
উত্তর: অবিরল
১৬। কবিতায় কোন কোন পাখির কথা উল্লেখ আছে?
উত্তর: শঙ্খচিল, লক্ষ্মীপেঁচা
১৭। এ কবিতায় শঙ্খচিল কেমন?
উত্তর: চঞ্চল
১৮। শঙ্খচিল কোথায় চঞ্চল?
উত্তর: হাওয়ায়
১৯। শঙ্খচিল কীসের মতো চঞ্চল?
উত্তর: পানের বনের মতো
২০। কবিতায় লক্ষ্মীপেঁচাকে কোন কোন বিশেষণে বিশেষায়িত করা হয়েছে?
উত্তর: অস্ফুট, তরুণ
২১। লক্ষ্মীপেঁচা কীসের মতো অস্ফুট?
উত্তর: ধানের গন্ধের মতো
২২। কী নুয়ে থাকার কথা কবিতায় উল্লেখ আছে?
উত্তর: লেবুর শাখা
২৩। লেবুর শাখা কোথায় নুয়ে থাকে?
উত্তর: ঘাসের উপর
২৪। লেবুর শাখা নুয়ে থাকে কখন?
উত্তর: অন্ধকারে
২৫। কবিতায় কার উড়ে যাওয়ার কথা উল্লেখ আছে?
উত্তর: সুদর্শন
[নোট: সুদর্শন: এক ধরনের পোকা।]
২৬। সুদর্শন কোথায় উড়ে যায়?
উত্তর: ঘরে
২৭। সুদর্শন কখন কীভাবে উড়ে যায়?
উত্তর: অন্ধকার সন্ধ্যার বাতাসে
২৮। কী রঙের শাড়ির কথা কবিতায় উল্লেখ আছে?
উত্তর: হলুদ শাড়ি
২৯। হলুদ শাড়ি কার শরীরের ওপর লেগে থাকে?
উত্তর: রূপসীর
৩০। কবি সে রূপসীর নাম কী রেখেছেন?
উত্তর: শঙ্খমালা
৩১। পৃথিবীকে কবি কোন বিশেষণে বিশেষায়িত করেছেন?
উত্তর: বিশাল
৩২। এ বিশাল পৃথিবীর কোথায় শঙ্খমালাকে খুঁজে পাওয়া যাবে না?
উত্তর: কোনো নদী ঘাসে
৩৩। কে বর দিয়েছেন?
উত্তর: বিশালাক্ষী
৩৪। বিশালাক্ষী কে?
উত্তর: যে রমণীর চোখ আয়ত ও টানাটানা। এ কবিতায় দেবী দুর্গাকে বোঝানো হয়েছে।
৩৫। এ কবিতায় ‘বর’ কী অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে?
উত্তর: আশীর্বাদ অর্থে
৩৬। শঙ্খমালা কীসের ভেতর জন্মেছে?
উত্তর: নীল বাংলার ঘাস আর ধানের ভেতর
৩৭। শঙ্খমালার জন্ম কোথায়?
উত্তর: নীল বাংলায়
৩৮। এ কবিতায় কোন ফলের নাম উল্লেখ আছে?
উত্তর: নাটা

Spread the love